Home Privacy Policy Disclaimer Sitemap Contact About
মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৫:৩২ অপরাহ্ন

মণিরামপুরে ব্যাংক কর্মকর্তার বিরুদ্ধে প্রতারনার মামলা

নূরুল হক মণিরামপুর, যশোর।
  • আপডেটের সময় : বুধবার, ৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ১৪ আপডেট পোস্ট

ঋন পাইয়ে দিতে ঘুষ নেয়ার অভিযোগ উঠেছে বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক, মণিরামপুর শাখার কর্মরত আইও মিঠুন চ্যাটার্জীর বিরুদ্ধে। ঘুষ প্রদান করার পরও ঋন প্রদান না করাসহ বিভিন্ন অভিযোগে আদালতে মামলা করেছেন মফিজুর রহমান নামে এক ভুক্তভোগী।

মামলার বিবরণ থেকে জানাযায়, উপজেলার রতেশ্বর গ্রামের আব্দুস সালাম মোড়লের পুত্র মফিজুর রহমান ইতোপূর্বে গাভী পালনের জন্য বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক, মণিরামপুর শাখা হতে ৮০ হাজার টাকা ঋন গ্রহণ করেন। যথারীতি তিনি ব্যাংকের টাকা ঋন পরিশোধ করতে থাকেন। ব্যাংকে লেনদেন চলাকালিন সময়ে এ ব্যাংকে কর্মরত আইও মিঠুর চ্যাটার্জী সুকৌশালে মফিজুরের সাথে সুসম্পর্ক গড়ে তোলে।

কিছু দিন পর মিঠুন চ্যাটার্জী বাদী মফিজুরকে প্রস্তাব দেয়-যদি সে তার গ্রহণ করা ঋন সম্পূর্ণ পরিশোধ করে তাহলে তাকে পূনরায় ১লক্ষ ৫০ হাজার টাকা লোন করে দিবে। আর এ লোন পাশ করার জন্য তাকে ১৪ হাজার টাকা ঘুষ প্রদান করতে হবে। সে মোতাবেক বাদী মফিজুর নিজের গাভীসহ কিছু সম্পদ বিক্রি করে ব্যাংকের সমূদ্বয় ঋন পরিশোধ করে দেয়।

পরবর্তীতে নতুন করে লোন পাশ করানোর জন্য ব্যাংক কর্মকর্তা মিঠুন চ্যাটার্জীকে ১৪ হাজার টাকা প্রদান করেন। মফিজ মাসাধিক কাল মিঠুনের পিছন-পিছন ঘুরলেও তার লোন পাশ না করে বিলম্ব করতে থাকে। পরিশেষে তার লোন হবে না বলে জানিয়ে দেয় ব্যাংক কর্মকর্তা মিঠুন। মফিজ তখন তাকে ঘুষ দেয়া ১৪ হাজার টাকা ফেরত চাইলে টাকা ফেরত দিতে অস্বীকার করে।

মফিজের চাপাচাপিতে ৪ হাজার টাকা ফেরত দেয় এবং ১৫ দিন পর বাকী ১০ হাজার ফেরত দিবে বলে অঙ্গিকার করে। কিন্তু নির্দিষ্ট সময় অতিক্রম করলেও টাকা প্রদান না করে মিঠুন টালবাহানা করতে থাকে। এ সময়ে মফিজ তার বাড়ীতে মিঠুনসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যাক্তিদের নিয়ে একটি শালিসী বৈঠকে বসে।

সেখানে টাকা ফেরত দিতে মিঠুন অস্বীকার করে এবং তাকে বিভিন্ন প্রকার ভয়ভীতিসহ হুমকি প্রদর্শন করে। এমতাবস্থায় প্রতারণার শিকার মফিজ টাকা ফেরত ও বিচারের জন্য গত ২৬ আগষ্ট বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিট্রেড গৌতম মল্লিকের (মণিরামপুর) আমলী আদালতে একটি মামলা দায়ের করেছেন।

যার মামলা নং-সিআর-৫৬০/২১। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে মণিরামপুরের ১১নং-চালুয়াহাটি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানকে প্রতিবেদন দাখিল করার জন্য আদেশ প্রদান করেছেন। এ বিষয়ে জানতে চেয়ে মামলার বিবাদী মিঠুন চ্যাটার্জীর ফোন করলে তিনি ঘুষ নেয়ার বিষয়টি অস্বীকার করেন।

এই খবর শেয়ার করে আপনার টাইমলাইনে রেখে দিন Tmnews71

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর
© All rights reserved  https://tmnews71.com/
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: রায়তা-হোস্ট
raytahost-tmnews71