Home Privacy Policy Disclaimer Sitemap Contact About
রবিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২১, ০৩:১৩ পূর্বাহ্ন

স্ত্রীকে সন্তুষ্ট করতে সীমিত পরিসরে সত্য গোপন করার অবকাশ রয়েছে: মাওলানা মামুনুল

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেটের সময় : বৃহস্পতিবার, ৮ এপ্রিল, ২০২১
  • ৩২ আপডেট পোস্ট

‘স্ত্রীকে সন্তুষ্ট করতে, স্ত্রীকে খুশি করতে প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রে সীমিত পরিসরে কোনো সত্যকে গোপন করারও অবকাশ রয়েছে বলে দাবি করেন হেফাজতে ইসলামের নেতা মামুনুল হক।

আজ বৃহস্পতিবার ফেসবুক লাইভে এসে এ কথা বলেন হেফাজতের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক এবং খেলাফত মজলিসের মহাসচিব মামুনুল হক।

এর আগে গত ৩ এপ্রিল নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে রয়্যাল রিসোর্টে এক নারী সহ মামুনুল হককে ঘেরাও করেন স্থানীয় সরকার সমর্থকেরা।

ঘটনার সময় উপস্থিত সাংবাদিকদের তিনি জানান, সঙ্গে থাকা নারী তাঁর দ্বিতীয় স্ত্রী। দুই বছর আগে তিনি বিয়ে করেছেন।

কয়েকটি ফাঁস হওয়া ফোনালাপের সূত্রে জানা যায়, দ্বিতীয় বিয়ে করার বিষয়টি মামুনুল হকে প্রথম স্ত্রী জানতেন না। তা ছাড়া রিসোর্টে স্ত্রীর নাম সঠিক বলেননি মামুনুল।

ওই ঘটনার পাঁচ দিন পর মামুনুল হক লাইভে এসে বলেছেন, ‘আমি একাধিক বিয়ে করেছি।’

তিনি দাবি করেন, ইসলামি শরিয়ত অনুযায়ী ও বাংলাদেশের আইনে একাধিক বিয়ের ক্ষেত্রে কোনো বাধা নেই।

মামুনুল বলেন, একজন পুরুষ চারটি বিয়ে করতে পারেন। চারটি বিয়ে করলে কার কী?

রয়্যাল রিসোর্টে নারীসহ তাকে জখন অবরুদ্ধ করা হয় তখন স্থানীয় হেফাজতে ইসলামের নেতা–কর্মীরা সেখানে ব্যাপক ভাঙচুর করে মামুনুল হককে ছিনিয়ে নিয়ে যান তাঁরা। ওই দিনের ঘটনার মামুনুল হককে আসামি করা হয়। এছাড়া আরও একটি মামলা করা হয়।

অন্যদিকে তাঁর পক্ষে দলীয় এক নেতা ঘটনার পরদিন থানায় একটি অভিযোগ করেন। যদিও সেটি মামলা হিসেবে গ্রহণ করা হয়নি।

গতকাল লাইভে এসে মামুনুল বলেন, যাঁরা তাঁর ব্যক্তিগত আলাপ, কথা জনসম্মুখে এনেছেন; তিনি (মামুনুল) তাঁদের বিরুদ্ধে ব্যক্তিগত গোপনীয়তা লঙ্ঘনের অভিযোগে মামলা করবেন।

মামুনুল বলেন, ওই দিন অসাবধানতা ও নিজস্ব নিরাপত্তা না নিয়ে রয়্যাল রিসোর্টে ঘুরতে যাওয়া তাঁর উচিত হয়নি। ব্যক্তিগত অসাবধানতা ও পদক্ষেপ না নেওয়ায় তিনি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন।

মামুনুল হক ওই দিনের ঘটনার জন্য পুলিশকে দায়ী করেন। এ ছাড়া স্থানীয় ক্ষমতাসীন দলের নেতা–কর্মীদেরও দায়ী করেন।

তিনি বলেন, যাদের কারণে এমন হয়েছে, তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে না।

লাইভে মামুনুল হক নিজের ও ‘শিশুবক্তা’ রফিকুল ইসলাম মাদানীর কথা উল্লেখ করেন।

তিনি বলেন, সরকার মানুষের চরিত্রহননের কাপুরুষোচিত পন্থা অবলম্বন করেছে। এতে কেউই সম্মান নিয়ে চলতে পারবে না। এর প্রতিবাদ করতে তিনি সবার প্রতি আহ্বান জানান।

এই খবর শেয়ার করে আপনার টাইমলাইনে রেখে দিন Tmnews71

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর
© All rights reserved www.tmnews71.com
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: রায়তা-হোস্ট
raytahost-tmnews71